বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:০১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
শিক্ষার্থীদের শিখন ঘাটতি নিরাময় ও ঝরে পড়া রোধকল্পে মুরাদনগরে এমপি’র মতবিনিময় সভা নবজাতক কন্যাকে আর কোলে নেয়া হলো না আতিক মুন্সীর! মুরাদনগরে মানসিক প্রতিবন্ধী নাছির হত্যা মামলার আসামী গ্রেফতার কুমিল্লায় বাংলাদেশ কৃষকলীগের আঞ্চলিক সাংগঠনিক সভা অনুষ্ঠিত একদা এমনই বাদল শেষের ভোরে কুমিল্লা-৭(চান্দিনা) সংসদীয় আসনের উপ-নির্বাচনে ডা: প্রাণ গোপাল দত্তকে  বিজয়ী ঘোষণা  নাঙ্গলকোটে নারী ভোটারের ব্যাপক উপস্থিতি, ইভিএম নিয়ে বিড়ম্বনা মুরাদনগরে স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ফেনীতে অবৈধভাবে সিএনজি গ্যাস সরবরাহের দায়ে ১৭ জন গ্রেফতার মৃত্যুর ৯ মাস পর কবর থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার হোমনায় বিয়ে বাড়িতে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০ মুরাদনগরে ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা চেষ্টায় একজন আটক এমপি বাহারের বড় ভাইয়ের ইন্তেকাল গার্মেন্টস কর্মীকে অপহরণ ও ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ছয় জন আটক মুরাদনগরে সংঘর্ষে নিহতের ঘটনায় ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা: সাংসদের পরিদর্শন
নওরোজ সাহিত্য সম্ভার থেকে প্রকাশ হয়েছে আতিকুর রহমান সুজন-এর দ্বিতীয় নাট্যগ্রন্থ

নওরোজ সাহিত্য সম্ভার থেকে প্রকাশ হয়েছে আতিকুর রহমান সুজন-এর দ্বিতীয় নাট্যগ্রন্থ

সালমা আক্তার চৈতি।।  নওরোজ সাহিত্য সম্ভার থেকে প্রকাশ হয়েছে আতিকুর রহমান সুজন-এর দ্বিতীয় নাট্যগ্রন্থ “তিনটি নাটক”। প্রচ্ছদ এঁকেছেন চারুশিল্প। আতিকুর রহমান সুজন নাট্যকলা বিষয়ে পড়াশোনা করেছেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্ববিদ্যালয় ও রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্টার্স। তাই এই বিষয়টির সঙ্গে হয়েছে নিবিড় সম্পর্ক। তারই ধারাবাহিকতায় ” তিনটি নাটক “।ভিন্ন ঘরানার নাটক গল্পকথা, প্রিয়ংবদার মৃত্যু ও অনন্তের শেষ বিন্দু। জীবনের গল্পের সাথে শিল্পের সম্পর্ক। এ যেন এক মায়ার খেলা। তবু শিল্পের সাথে সব খেলা তার তিনটি নাটকের সব চরিত্রদের।

 

এছাড়া ২০২০ বই মেলায় বের হয়েছে প্রথম নাট্যগ্রন্থ একটি স্বাভাবিক মৃত্যু ও অন্যান্য। জীবনের কথাই নাটকে উঠে আসে জীবন হয়ে। বিন্দু বিন্দু সময় ধরে সেই জীবনের অস্তিত্বকে লিখা হয় অতি যতনে। তখন বিমূর্ত সত্তা হয়ে উঠে মূর্ত। তিনটি নাটক-বইটিতে তিনটি নাটক রয়েছে। যেখানে জীবন ও বাস্তবতাই ফুটে উঠে দারুণ ভাবে। গল্পকথা নাটকে দেখা যায় একজন নিঃসঙ্গ বৃদ্ধ তার জন্মদিনে জীবনের কথা বলে। পরিবার, বাবা-মা, ছেলে-মেয়ে, বউ কেউ নেই তার সাথে। একা সে তার জীবন অতিবাহিত করছে। শেষে এসে বুঝতে পারছে বাবা-মা এর আদর আর ভালবাসার আকুতি। সে তার বাবা-মা কে দেখা শোনা করেনি ব্যস্ততার জন্য। আজ আবার সেই সময়ে সে একা। নাটকের শেষে উঠে আসে থিয়েটারের নানা কথা। থিয়েটারের সাথে জীবনের বাস্তবতার কথা।

 

প্রিয়ংবদার মৃত্যু নাটকে দেখা যায় একজন থিয়েটারের দলপ্রধানের জীবন চিত্র। সে তার জীবনের সব সময় ও অর্থ ব্যায় করে থিয়েটারে। কিন্তু তার মেয়েকেই বাঁচাতে পারে না চিকিৎসার অভাবে, অর্থের অভাবে। শেষে তার স্ত্রী ও জীবন দেয়। তবু সেই একা মানুষ থিয়েটার নিয়েই থাকবে বলে সংকল্প করে।

 

অন্তের শেষ বিন্দু নাটকটি একটি সাইকোলজিক্যাল নাটক বলা চলে। স্ত্রী চলে যায় স্বামী ও ছোট ছেলেকে রেখে। তারপর ও স্বামী বেঁচে থাকে স্ত্রীর কিছু ভালবাসার মুহূর্ত নিয়ে। ছেলে বড় হতে থাকে আর বাবা পাগল হতে থাকে ধীরে ধীরে। প্রিয়ন্ত বাবার জন্য প্রতিশোধ নিতে গিয়ে ব্যর্থ হয় । শেষে নিজের বাবকেই মুক্তি দেয় সে। আর শেষে সবাই শেষ বিন্দুতেই অবস্থান করে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
© কুমিল্লা দর্পণ। সর্বসত্ব সংরক্ষিত
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web