বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:২৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
শিক্ষার্থীদের শিখন ঘাটতি নিরাময় ও ঝরে পড়া রোধকল্পে মুরাদনগরে এমপি’র মতবিনিময় সভা নবজাতক কন্যাকে আর কোলে নেয়া হলো না আতিক মুন্সীর! মুরাদনগরে মানসিক প্রতিবন্ধী নাছির হত্যা মামলার আসামী গ্রেফতার কুমিল্লায় বাংলাদেশ কৃষকলীগের আঞ্চলিক সাংগঠনিক সভা অনুষ্ঠিত একদা এমনই বাদল শেষের ভোরে কুমিল্লা-৭(চান্দিনা) সংসদীয় আসনের উপ-নির্বাচনে ডা: প্রাণ গোপাল দত্তকে  বিজয়ী ঘোষণা  নাঙ্গলকোটে নারী ভোটারের ব্যাপক উপস্থিতি, ইভিএম নিয়ে বিড়ম্বনা মুরাদনগরে স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ফেনীতে অবৈধভাবে সিএনজি গ্যাস সরবরাহের দায়ে ১৭ জন গ্রেফতার মৃত্যুর ৯ মাস পর কবর থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার হোমনায় বিয়ে বাড়িতে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০ মুরাদনগরে ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা চেষ্টায় একজন আটক এমপি বাহারের বড় ভাইয়ের ইন্তেকাল গার্মেন্টস কর্মীকে অপহরণ ও ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ছয় জন আটক মুরাদনগরে সংঘর্ষে নিহতের ঘটনায় ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা: সাংসদের পরিদর্শন

অপরাজিত ওহে

বাসন্তী সাহা।। তুমি পূব আকাশে রঙধনু দেখেছো কখনও? রঙধনু কী? আর পূব আকাশটাই বা কী? তিস্তা চেয়ে থাকে অপলক। আমি বলি, রেইনবো। রেইনবো কী সেটা সে জানে । বৃষ্টি হওয়ার পর আকাশ পরিষ্কার থাকলে পূব আকাশে রঙধনু ওঠে। রঙধনুর কতগুলো রঙ তাও সে জানে। ইউটিউবে দেখেছে । কিন্তু কখনও আকাশে রঙধনু দেখেনি সে।
এই লকডাউনে ছেলে-মেয়েগুলো বড় হয়ে গেলো। মাঝে মাঝে অবাক হয়ে মেয়ের দিকে তাকাই আর বিজ্ঞাপনের মতো করে বলি ‘তুই কবে এতো বড় হয়ে গেলি?’ লকডাউনে লেখাপড়ার জন্য অভ্যস্ত হয়ে গেছে কম্পিউটার, ইন্টারনেটের সাথে। কিছু তার বুঝি আবার কিছু তার বুঝি না বা। মাঝে মাঝে আশঙ্কা করছিলাম এই যে স্কুলে যাচ্ছে না, বন্ধুদের সাথে মিশছে না ভেতরে ভেতরে বড় ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে নাতো!
স্কুলে পরীক্ষা চলছিলো। নালন্দার বাচ্চাদের পরীক্ষা ভীতি নেই। তারা হাসতে হাসতে কঠিনতম পরীক্ষা দিতে পারে । দরজা বন্ধ করে একা পরীক্ষা দেয়। তখন পরীক্ষা দিতে দিতে তারা বন্ধুদের সাথে চ্যাট করে। সেটা প্রাইভেটলি। সেই প্রাইভেট কথোপকথনে তার এক বন্ধু তাকে লিখেছে-
Shut up u look like a ugly ghost you idiot
YOU LOOK AFRICAN
I WILL BREAK YOUR BONES YOU SKINNY BRAT
YOU ARE AUTISTIC JUST LIKE YOUR BROTHER
Be ready cause I will beat you up at school, if I looked like you I would’ve killed myself.
না আমার দশবছরের মেয়ে শ্রমণা শ্রাবস্তী তিস্তা কী লিখেছে সেটা আমাকে দেখায়নি। হয়তো সেও লিখেছে। কিন্তু এগুলো আমাদের মেয়েরাই লিখেছে। বুলিং এর অভিজ্ঞতা আমার নেই তা নয়। একজন ম্পেশাল বাচ্চার মা হিসেবে এতো আমি জানি। বাবিকে নিয়ে নালন্দার সময়টার সব অভিজ্ঞতা আনন্দের তাও নয়। আমার দিকে যখন আঙুল তুলেছে কেউ তখন হয়তো ততটা সহজ ছিল না। আজ যেমন প্রাণ খুলে, মন খুলে আমি বলতে পারি আমার একটা স্পেশাল বাচ্চা আছে, ‘বাবি’। বাবি এই পৃথিবীর সুন্দরতম ছেলে বা আমি স্কুলে পরিচয় দেই আমি ‘বাবির মা’ তাহলে আমাকে চিনতে সহজ হবে। এই উত্তোরণ টা একদিনে হয়নি। আজ যদিও নিজের আত্মবিশ্বাস দিয়ে সবকিছু ঢেকে রাখতে পারি। কিন্তু এর পেছনে ভেঙে গুঁড়ো গুঁড়ো হয়ে যাওয়ার ইতিহাস আছে।
বাইরে থেকে কোনো মানুষেরই বোঝা সম্ভব নয় এই ছেলে-মেয়ে আমার জীবনের দামে কেনা। কতটা মূল্য দিয়েছি আমি। আজ যখন কেউ বলে, আপনার স্পেশাল বাচ্চা আছে দেখেতো বোঝা যায় না! তখন হেসে বলি-আমার কপালে লিখে ঘুরতে হবে। সেই হেসে উত্তর দেয়ার যুদ্ধটাও কারো বোঝা সম্ভব নয় । নিজের মনের সব ভাঙচুর একদম কাছের মানুষকেও দেখাতে হয় না।
তিস্তা ‘সুরের ধারায়’ গান শিখছে। ওখানে একজন আমার সাক্ষাৎকার নিয়েছিলো কেন সুরের ধারায় মেয়েকে দিয়েছেন-বলেছিলাম গান শিখে সে বড় কিছু হবে সেটা ভেবে দেইনি। কেবল ‘নয়নের দৃষ্টি হতে ঘুচবে কালো, যেখানে পড়বে সেথায় দেখবে আলো’ ও যেনো ওই আলোটা খুঁজে পায়। কিন্তু কোথায় আলো! আমি নিজে যতই শুনি আর মেয়েকে শোনাই –
যদি দুঃখে দহিতে হয় তবু অশুভচিন্তা নয়।
যদি দৈন্য বহিতে হয় তবু অশুভকর্ম নয়।
যদি দণ্ড সহিতে হয় তবু অশুভবাক্য নয়।
আমি একা পারবো না। আমার লেখায়ও কিছু চেঞ্জ হবে তাও নয়। তবু কিছুটা চেষ্টা আর কিছুটা নিজের ভার লাঘব করা ‘একেলা রই অলসমন, নীরব এই ভবনকোণ,. ভাঙিলে দ্বার কোন্ সে ক্ষণ অপরাজিত ওহে॥
লেখক: কর্মসূচী পরিচালক, দর্পণ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
© কুমিল্লা দর্পণ। সর্বসত্ব সংরক্ষিত
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web